Connect with us

Barak Valley

এমজিএনৰেগা ৰ কামত বিয়াগোম দুৰ্নীতি, কাম ন কৰাই টকা আত্মসাৎ কৰাৰ অভিযোগ ৷ নিৰ্বাচিত গ্ৰুপ সদস্যই গোচৰ তৰিলে বিডিও, পঞ্চায়ত সভানেত্ৰী, সচিব সহ মোট ছয় জনৰ বিৰুদ্ধে ৷

Published

on

কাছাৰ, ২৫ নভেম্বৰ: কাছাৰ জিলাৰ উধাৰবন্ধ উন্নয় খণ্ডৰ অন্তগৰ্ত ৰংপুৰ পঞ্চায়তৰ এটা এমআই বান নিৰ্মাণত হোৱা দুৰ্নীতি লৈ উধাৰবন্ধ বিডিও সুস্মিতা দাম, পঞ্চায়ত সভানেত্ৰী জৰিনা বেগম তেওঁৰ স্বামী আলতাফ হুছেইন, পঞ্চায়ত সচিব ইয়াছমিন চুলতানা আৰু সহকাৰী অভিযন্তা প্ৰাৰভেজ আহমেদ সহ মোট ৬ জনৰ বিৰুদ্ধে ৰংপুৰ আৰক্ষী চকীত গোচৰ ৰুজু কৰিলে পঞ্চায়ত খনৰ ৫নং গ্ৰুপৰ গ্ৰুপ সদস্য ইন্তাজুল হক বৰলস্কৰে ৷

তেওঁৰ অভিযোগ , তেওঁৰ ৫নং গ্ৰুপত ২০২০/২১ অৰ্থ বছৰত এটা এমআই বান নিৰ্মাণৰ বাবে মোট ৯ লাখ টকা চৰকাৰী বাবে বৰাদ্দ কৰা হৈছিল ৷ কিন্তু বিডিও সুস্মিতা দাম, পঞ্চায়ত সভানেত্ৰী জৰিনা বেগম লস্কৰ আৰু তেওঁৰ স্বামী আলতাফ হুছেইন সহ সচিব ইয়াছমিন চুলতানা আৰু সহকাৰী অভিযন্তা প্ৰাৰভেজ আহমেদে এই এমআই বান ৰ কাম ন কৰি টকা আত্মসাৎ কৰে ৷

আৰু তেওঁৰ গ্ৰুপত সংঘটিত হোৱা এই দুৰ্নীতিৰ খৱৰ পাই তেওঁ পঞ্চায়ত সভানেত্ৰী সহ বিভাগীয় কৰ্তৃপক্ষ সকলৰ পৰা বিষয়টো জানিব বিচাৰিলে তেওঁলোকৰ পৰা কোনো সদুত্তৰ না পাই বাদ্য হৈ তেওঁ যোৱা কালি ৰংপুৰ আৰক্ষী চকীত বিডিও সুস্মিতা দাম, পঞ্চায়ত সভানেত্ৰী জৰিনা বেগম তেওঁৰ স্বামী আলতাফ হুছেইন, পঞ্চায়ত সচিব ইয়াছমিন চুলতানা আৰু সহকাৰী অভিযন্তা প্ৰাৰভেজ আহমেদ সহ মোট ৬ জনৰ বিৰুদ্ধে গোচৰ ৰুজু কৰি উচিত তদন্তৰ দাবী জনায় ৷

Continue Reading

Barak Valley

সোনাই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের নতুন কমিটি গঠিত, সভাপতি জে.এম কবির, সম্পাদক রামকৃষ্ণ নাথ।

Published

on

শিলচর, ১৭ নভেম্বর : সোনাই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন (এস.সি.এ) এর নতুন কমিটি গঠিত হল। গত রবিবার সকালে সোনাই এন.জি এইচ.এস স্কুল মাঠের পেভিলিয়ান হলে সংস্হার ৪৯ তম সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এদিন সংস্থা বিদায়ী কমিটির সভাপতি বদর উদ্দিন মজুমদার এর পৌরোহিত্য অনুষ্ঠিত প্রথম পর্বের সভার শুরুতে বিগত দিনের সম্পাদকীয় প্রতিবেদন তুলে ধরেন বিদায়ী কমিটির সম্পাদক রামকৃষ্ণ নাথ।

এর পর সম্পাদকীয় প্রতিবেদন এর উপর সদস্যরা আলোচনা করেন। দীর্ঘ আলোচনার পর বিদায়ী কমিটির সভাপতি বদর উদ্দিন মজুমদার তাঁর কমিটি ভঙ্গ করে নতুন কমিটি গঠনের জন্য আবেদন রাখেন। দ্বিতীয় পর্বে কমিটি গঠনের সভা বক্তার হোসেন বড়লস্কর এর পৌরোহিত্য শুরু হয়। সভায় সংস্হার নতুন কমিটির সভাপতি হিসাবে – জে.এম কবির লস্কর (সাহার)। কার্যকরি সভাপতি হিসাবে এস, এম, দিলওয়ার জাহান লস্কর (সাহারুল) ও সবুর আহমেদ মজুমদার (টুকন) কে মনোনীত করা হয়।

কমিটির সহ-সভাপতি হিসাবে সাহানুর আলম লস্কর (হীরা), শাহাদত হোসেন লস্কর (বাপ্পি) ও মনোজ কুমার দাস। সম্পাদক হিসাবে তৃতীয় বারের জন্য রামকৃষ্ণ নাথ কে বহাল রাখা হয়। সহ সম্পাদক হিসাবে এনামুল ইসলাম লস্কর, নজমুল হক বড়ভূইয়া,প্রিতম বর্ধন ও সাহার বড়ভূইয়া।কোষাধ্যক্ষ পদে মান্না লস্কর। হিসাব রক্ষক হিসাবে বিভাশিষ রায়, রমিজ উদ্দিন লস্কর এবং প্রচার সম্পাদক  তাহের আহমেদ মজুমদার।

কার্যকরী সদস্য হিসাবে আক্তার হোসেন লস্কর, সাহেদ চৌধুরী (হিরামনি), আফসর আহমেদ লস্কর, আজাদ হোসেন লস্কর (অপ্পু), নাজির হোসেন বড়লস্কর। নতুন কমিটির চিপপেট্রন হিসাবে রয়েছেন সোনাইর বিধায়ক করিম উদ্দিন বড়ভূইয়া( সাজু)। এছাড়াও কমিটির মুখ্য উপদেষ্টা হিসাবে বদর উদ্দিন মজুমদার ও উপদেষ্টা হিসাবে রাখা হয়েছে বক্তার হোসেন বড়লস্কর, জে,এম, ইকবাল লস্কর, গৌরব রায় কে।

এছাড়াও এদিন বেশ কটি সাব-কমিটি গঠন করা হয়। এদিন সংস্হার বিভিন্ন প্রতিয়োগিতার টিম গঠনের জন্য সিলেকশন কমিটির চেয়ারম্যান হিসাবে বদর উদ্দিন মজুমদার, সদস্য হিসেবে সাহানুর আলম লস্কর (হীরা) সবুর আহমেদ মজুমদার ( টুকন) মনোজ কুমার দাস ও ,শাহাদত হোসেন লস্কর (বাপ্পি)কে রাখা হয়েছে।

ফাইনেন্স সাব কমিটির চেয়ারম্যান হিসাবে আজমল হোসেন লস্কর, সদস্য হিসাবে শাহাদত হোসেন লস্কর (বাপ্পি), এস এম দিলওয়ার জাহান লস্কর, সাহানুর আলম লস্কর (হীরা) সবুর আহমেদ মজুমদার কে রাখা হয়েছে। এদিন সংস্থার ক্রিকেট ডেভেলপমেন্ট কমিটির চ্যায়ারমেন হিসাবে বক্তার হোসেন বড়লস্কর, সদস্য হিসাবে বদর উদ্দিন মজুমদার, সবুর আহমেদ মজুমদার, সাহার আলম বড়ভূইয়া, সাহেদ চৌধুরী কে রাখা হয়েছে।

সংস্থার লিগেল এডভাইসার হিসাবে রসিদুল হক লস্কর কে মনোনীত করা হয়েছে। এদিন সভায় সোনাই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন এর নতুন মরসুমে বিভিন্ন প্রতিয়োগিতা আয়োজন করা সহ জেলা ক্রীড়া সংস্হা আয়োজিত প্রথম বিভাগীয় লিগ খেলার ব্যাপারে বিভিন্ন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এদিন সভায় বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন বদর উদ্দিন মজুমদার, বক্তার হোসেন বড়লস্কর, জে.এম কবীর লস্কর, সাহানুর আলম লস্কর, এস.এম দিলওয়ার জাহান লস্কর, সবুর আহমেদ মজুমদার, সাহার বড়ভূইয়া, শাহাদত হোসেন লস্কর প্রমুখ।এক প্রেস বার্তায় এখবর জানিয়েছেন সংস্হার প্রচার সচিব তাহের আহমেদ মজুমদার।

Continue Reading

Barak Valley

জাতীয় প্রেস দিবসে করিমগঞ্জ জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আলোচনা চক্র।

Published

on

শিলচর, ১৭ নভেম্বর: সমাজের ভাতৃত্ব, উন্নয়ন, রাজনৈতিক প্রশাসনিক সব ক্ষেত্রে সংবাদ মাধ্যমের অনেক অবদান। গণতান্ত্রিক দেশ ভারত বর্ষে সাংবাদিকরা বিভিন্ন বিষয়ে নিজেদের মতামত পত্রিকা বা টিভিতে তুলে ধরেন। তাদের গঠন মূলক আলোচনা যেমন সমাজ সচেতন হয় তেমনি প্রশাসন থেকে রাজনীতি সকলের বিশেষ দৃষ্টি থাকে। আজ জাতীয় সাংবাদিকতা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে নিজের মতামত তুলে ধরেন জেলা শাসক মৃদুল কুমার যাদব।

তিনি বলেন সাংবাদিকরা সমাজ ও দেশের জন্য সতর্ক থাকতে হবে। জেলা শাসক মৃদুল কুমার যাদব জাতীয় প্রেস দিবসে সকল সাংবাদিকদের অভিনন্দন জানান। সমস্ত দেশের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে করিমগঞ্জ জেলা প্রশাসনের উদ্যোগেও জেলাশাসকের কনফারেন্স হলে জাতীয় প্রেস দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা চক্র সম্পূর্ণ হয়েছে। মঙ্গলবার, করিমগঞ্জের ভারপ্রাপ্ত তথ্য ও জনসংযোগ আধিকারিক (এডিসি) বিক্রম চাষার সঞ্চালনায় ও জেলাশাসক মৃদুল যাদবের পৌরহিত্যে “সংবাদ মাধ্যামকে কে না ভয় করে ?” বিষয়ের উপর আলোচনা হয়।

জেলার ছাপা ও বিদ্যুতিক সংবাদ মাধ্যামে কর্মরত সাংবাদিকদের উপস্হিতিতে আয়োজিত আলোচনা চক্রের বিশেষ আমন্ত্রিত হিসাবে প্রাসঙ্গিক বক্তব্য রাখেন প্রাক্তন বিধায়ক শিক্ষাবিদ ডঃ সুখেন্দু শেখর দত্ত, প্রেসক্লাবের মুখ্য উপদেষ্টা তথা জেলার দৈনিক নববার্তা প্রসঙ্গের সম্পাদক হবিবুর রহমান চৌধুরী, প্রেসক্লাবের সভাপতি মিহির দেবনাথ, সাধারন সম্পাদক অরূপ রায়, সিনিয়র সাংবাদিক মাহতাবুর রহমান প্রমূখ। প্রেসক্লাবের সভাপতি এদিনের আলোচ্য বিষয়ের উপর খুব শাণিত ভাষায় ব্যাখা করতে গিয়ে বলেন, বিষধর সাপকে সাধারন মানুষ ভয় করে ঠিক কিন্ত এই ভয়টা অবস্হান বিশেষ, কারন শোয়ার বিছানায় কিং কোবরা পেয়ে গেলে মানুষ যতটা ভয় পায় কিন্ত ঠাকুর ঘরে পেলে ততটা পায় না।

অর্থাৎ তিনি বুঝাতে চান বিষধর সাপকে মানুষ ভয় পায় ঠিকই কিন্ত অবস্হান বিশেষ এই ভয়ের মধ্যে তফাত আছে । সঠিক প্রশাসক ও রাজনৈতিকরা বিছানা বা ঠাকুরঘর কোথাও বিষধর সাপকে ভয় পায় না । কারন বিষধর সাপ অযথা কাউকে আক্রমন করে না। কিন্ত যাদের মনে মনে চুর-পুলিশ ভাব তারা অবশ্য সব জাগাতেই বিষধর সাপকে ভয় পায়।

যদিও মিহির বাবু তার এই ধারালো বক্তব্যের বিষয়টি খুব সাধারন ভাবে খোলাসা করেননি তবে তিনি আক্ষরিক অর্থে সাংবাদিক সমাজকে নিয়ে বর্তমান প্রশাসন ও শাসকদের ভয় করা বা না করার কারণ বর্ণনা করে আলোচ্য সূচীর উপর দীর্ঘ আলোকপাত করেন। অতীতের একটি প্রাসঙ্গিক বিষয় উল্লেখ করে বলেন, প্রয়াত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জহরলাল নেহরুকে প্রশ্ন করা হয়েছিল একদিকে বাঘ আর অন্যদিকে সাংবাদিককে রেখে দিলে তিনি কোন দিকে যাবেন এতে ওইদিন সাংবাদিকের দিকটাই ভয়ে করেছিলেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী।

কিন্তু আজকের দিনে সুষ্ট প্রশাসক-শাসক রাজনৈতিকরা সংবাদ মাধ্যমকে ভয় করছে কিন্ত মুখোশধারীরা করছে না এতেই সাংবাদিকরা নানা ভোগান্তি ও বঞ্চনায় ভোগছেন বলে মনে করেন মিহির দেবনাথ সহ অন্যান্যরা। হবিবুর রহমান চৌধুরী সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে গণতন্ত্র দেশের চারটি ফিলারের মধ্যে একটি  সাংবাদিকতা। রাজনৈতিক, প্রশাসনিক সহ বিভিন্ন বিষয়ের একাল-সেকালের প্রেক্ষেপট তুলে ধরে আজকের দিনে কোন অংশেই সাংবাদিকরা সুবিধাজনক অবস্হানে নেই বলে অভিমত ব্যাক্ত করেন।

তিনি সাংবাদিকদের আর্থিক অবস্থা এবং কাজের স্বাধীনতার উপর বেশ কিছু তথ্য নিয়ে আলোচনা করেন। প্রেস ক্লাবের সম্পাদক অরুপ রায় বলেন সাংবাদিকরা নানা সমস্যার মধ্যে নিজেদের কাজ করে যাচ্ছেন। আর্থিক সংকটের সঙ্গে দুর্নীতির বিরুদ্ধে মোকাবিলা করতে হচ্ছে। জেলার নানা কাজের তথ্য সহ সংবাদ পরিবেশন করার পরও প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ হচ্ছে না তাই এখন থেকে সাংবাদিকের সংবাদ যাচাই করার আবেদন রাখেন এবং প্রকাশিত সংবাদের ভিত্তিতে আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার আবেদন জানান।

আলোচনা পর্বের শেষদিকে গণ মাধ্যামের উপর বিশারদ উত্তীর্ণ রসোসিন্দু ভট্টাচার্যকে জেলা প্রশাসনের তরফে সম্মাননা সূচক উত্তরীও প্রদান করে সম্মানিত করা হয়। উত্তরীয় দিয়ে সম্মান জানানো হয় সৈয়দ মুজিবুর রহমানকে। তবে এই অনুষ্টানের মুখ্য দুই বক্তা ড,সুখেন্দু শেখর দত্ত,রবীন্দ্র সদন মহিলা কলেজের মাসকম বিভাগের অধ্যাপক নূর মহম্মদ বজরুল। যেমন ভাবে আলোচনা করার কথা ছিলো বাস্তবে তাদের কাছ থেকে তেমন তথ্য সহ বক্তব্য পাওয়া যায়না। মুখ্য বক্তাদের সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে সাংবাদিকদের মধ্যে হতাশা দেখা দিয়েছে ।

Continue Reading

Barak Valley

Barak Valley Welfare Development Society NGO Cachar, Silchar Celebrated Children’s Day 2021 in two phases.

Published

on

Silchar, November 15: In the first phase PAAVAN NGO, Silchar celebrated Children’s Day with all the inmates of Ujjawala Shelter Home for Girls and Women and Open Shelter Home for Boy’s by cake cutting and distributed study materials, some clothes, sweets among all the inmates present over there in both the Shelter Home.

In the second phase, the Cultural Programme has been organised by both Shelter Home’s i.e Ujjawala Shelter Home for girls and women, and Open Shelter Home for Boys.

Ujjawala Shelter Home girls program were based on social problems like acid attack, rape, child marriage, domestic violence, child labour, etc. (Thame Dance)

Open Shelter Home boy’s program was based on the life story of the former president of India Lt. Jawaharlal Nehru. (Thame dance)

Lastly many games, such as the musical chair, sit and Draw competitions and were organised for the children as well as for all the staff’s present over there and lots of prizes were distributed among the participants.

The program was chaired by the Executive Director of Barak Valley Welfare Development Society NGO Cachar, Silchar along with all the staff of Ujjawala Shelter Home and Open Shelter Home for Boys. In associated with Mahila Shakti Kendra (MSK), Silchar under District Social Welfare Office, One Stop Centre, Silchar. The programme ended with a vote of thanks from the chair.

Continue Reading

Trending