Connect with us

কবিতা

” প্রকৃতির কান্না”

Published

on

হাত ধরে এসেছিনু,
সৃষ্টির আদি ক্ষনে।
এক নিবিড় টানে,
প্রকৃতি পুরুষ নামে।
সুরে -সুর, তালে-তাল, গানে গান
গেয়ে;
বেঁধেছিনু এক অটুট বন্ধনে।
নাড়ীর টানে, ধরেছি রবির কিরণ
দিয়েছি নিবিড় ছায়া।
সয়েছি ইন্দ্রনীল, বাঁচিয়েছি তব
কায়া।।
বায়ুর স্পন্দনে ধরে রেখেছি তব
জীবন ধারা।
পাওনা শুধু তব মুখের হাসি আর
FB_IMG_1590740446377 একটু স্নেহের ছোঁয়া ।।

একি!!! চারিদিকে বন্যা,
ভূমিস্থলন, সুনামি আর কান্না!
কেন ভূলে আমার সব অস্তিত্ব,
কেড়ে নিলি সব কৃতিত্ব ??
আমার যে নাই কিছু পাওনা।
কেন স্বার্থপরতার কবলে
আমায় করে দিলি পশ্চাৎপদ??
ওরে,
আমিও সমব্যথায় ব্যথিত,,
কাঁধে তুলেছিলাম তব জীবন
রক্ষার দ্বায়িত্ব ;
আমি ব্যর্থ, আমি ব্যর্থ, আমি ব্যর্থ।

ওহে,
আজও ভালোবাসি,
আজও দাঁড়িয়ে আছি,
দুহাত বাড়িয়ে,
এগিয়ে আয়, কদম বাড়িয়ে।
পাওনা শুধু তব মুখের হাসি —
আর একটু স্নেহের ছোঁয়া।
আমি যে তুলেছিলাম, তর জীবন
রক্ষার দায়িত্ব !!
আমি ব্যর্থ, আমি ব্যর্থ
আমি যে ব্যর্থ!!!

Continue Reading

কবিতা

আজৰি পৰৰ চিন্তন

Published

on

পৃথিৱীৰ সকলো মানুহেই ৰোমাণ্টিক ; কোনো কোনো আনে দেখাকৈ, কোনো কোনো আকৌ ভিতৰি ভিতৰি। অন্তৰতে লুকাই ৰাখে। হয়তো কেতিয়াবা জোনাক দেখে ; নতুবা কেতিয়াবা তুঁহ জুই একুৰা লৈ ফুৰে। সেয়েহে মনৰ কথা কৈ দিলে সকাহ পোৱা যায়। কাকো একো ব্যক্ত নকৰি, নকৰিবলগীয়া চিন্তা কৰি কি লাভ! মিছাতে দুখ আৰু অব্যক্ত যন্ত্ৰণা চপাই লয়। গৰ্ব-অহংকাৰ সকলো ফুটুকাৰ ফেন! সকলো ধোঁৱা হৈ শূন্যতে বিলীন হ’ব। সকলো মিছা প্ৰমানিত হ’লেও এটা কথা চিৰন্তন সত্য.. সকলোৱে জানো… মৃত্যু অনিবাৰ্য। প্ৰতিনিয়ত নিজৰ অজ্ঞাতে তাক আলফুলকৈ বোকোচাত লৈ ফুৰোঁ। কোনেও খণ্ডন কৰিব নোৱাৰোঁ। ভগৱান কৃষ্ণইও তাৰ পৰা হাত সাৰিব নোৱাৰিলে। মনুষ্য কোন কুটা! তেন্তে ভয় কিহৰ! কপালৰ লিখনটো নহয় খণ্ডন। যিদিনা যাব লাগিব, ঠিক সিদিনা সিমান সময়তে যাবই লাগিব। ইয়াৰ গত্যন্তৰ নাই। চিন্তা অমূলক। মৃত্যুৰ কাৰণটো মাত্ৰ এক বাহানাহে। হা-হুতাশ কৰি কি লাভ! মিছাতে নিদ্ৰাহৰণ! অৱশ্যে নিজকে সুৰক্ষা কৰি ৰখাটো জৰুৰী কৰ্তব্য। যেনেদৰে তেল থাকিলেও চাকিগছি নুনুমাবলৈ বতাহ নলগাকৈ ৰখাটো প্ৰাৰ্থনা কৰোঁতাজনৰ নিতান্ত কৰ্তব্য। কেৱল যিমান পাৰি তেৰাত বিশ্বাস ৰাখি ভাল কাম কৰি যাব লাগে। ধন-সম্পত্তি এদিন আনৰ হ’ব। টোপোলা বান্ধি শেষ বিচাৰৰ হুকুমত নিব দিলেও লৈ যাব নোৱাৰি। এদিন সকলো পাহৰণিত লীন যাব। ভাল গুণখিনিহে ৰৈ যাব। সেয়েহে যিমান পাৰি ভাল কৰ্ম কৰি সকলোৱে আনন্দমনে থাকিব পাৰিলে মঙ্গল , তাতেই উজলি থাকে জীৱনৰ ৰং ! অন্ততঃ ইমানদিনে দখল কৰি থকা ঠাইটুকুৰাত আমি চিৰদিনৰ বাবে গুচি গ’লে, আনে এবাৰ হ’লেও খালি খালি অনুভৱ কৰিব। তাতেই জীৱনৰ সাৰ্থকতা! যেন অমৃত সুধা…..

Continue Reading

কবিতা

ভ্যাকসিন আবিষ্কার

Published

on

বুড়ন মামায় চিন্তা করইন,
হাগেবায়দি চাইয়া।
“করোনা”-র ওষুধ বানাইন
স্বপ্নে বুলে পাইয়া ।
ঠোটর চিপো, সাদামলা,
কানো আবার বিড়ি।
চকির মাজে শিশি-বুতল,
তলে বওয়ার পিড়ি।
হুকনা গুপর, মধুর লগে
ঘুটনি দিয়া মিলাইন।
ধুতরা গুটা গুড়া করি
ইতার মাজে দিলাইন।
চিকার লেদা, ঘুণোর গুড়া,
ইচা মাছোর শুড়।
লগে আছে কালা-কালা
কুশিয়ারোর গুড়।
আরো কত টোটকা তাবিজ,
ভাঙ্গা দাঁতোর “ফু”,
ওউ ওষুদে কমব বেমার,
কইছে বুলে “হু” (WHO)।
এমন ওষুদ মিলতো নায় আর,
এক্কেবারে খাটি।
লাভর টেকায় ইবার বুলে
কিনিলাইতা মাটি ।
….
ঠগাঠগির কত উপায় ,
কত আছে তাল।
হুনা মাতো লগে লগে
মারিও না ফাল।
আসল কথা করোনা, এক
ছোঁয়াছুঁয়ি রোগ।
কিছু নিয়ম মানলে পরে
অইতো নায় দুর্ভোগ ।
স্যানিটাইজার, মাস্ক্ সবে
মনো করি লই,
ভীড়র থনে আমরা যেনো,
দূরই দূরই রই।

Continue Reading

Trending